Thursday, October 05, 2006

দিনকাল.২: বৈদ্যুতিক বিস্ফোরন, সংলাপ, বোরাট এবং Camel Toe

বিদ্যুতের দাবিতে গত সপ্তাহে বেশ ভালো ভাংচুর, আন্দোলন হল ঢাকায়। সব পত্রিকায়ই ফলাও করে লিখেছে। তবে বাঙালী ভুলোমনা, শীতকালে কারেন্টের দরকার কম, ইলেকশন আসতে আসতে বিদ্যুতের সমস্যার কথা ভুলে যাওয়ার কথা। আসলে বাংলাদেশে সংবিধানে যথেষ্ট চেক এ্যান্ড ব্যালান্সের ব্যবস্থা নেই, এ কারনে যে দলই আসে তারা পাচ বছরের জন্য জমিদারী পেয়ে বসে। নির্বাচন চার বছর পর পর করা উচিত আর সিনেট/কংগ্রেসের মতো দুকক্ষ থাকা উচিত যাতে প্রতি দুবছরেই কোন না কোন নির্বাচন থাকে। তাহলে সরকার তার পারফরম্যান্স কেমন হচ্ছে তার একটা ধারনা পাবে।

সংলাপ শেষমেশ শুরু হলো। সমাধান কতদুর হবে বোঝা মুষ্কিল, তবে মনে হয় এবার কিছু অগ্রগতি হলে হতে পারে। না হলে দেশের অবস্থা ঠিক কোন দিকে যাবে তা নিয়ে চিন্তিত হতে হয়। একদিক থেকে সংলাপ দেরীতে হয়েই ভালো হলো, আগে হলে দুদলই এর রেশ টানতে চাইত, এখন যেহেতু হাতে সময় নেই তাড়াতাড়ি ফলাফল পাওয়া যাবে।

পাকিস্তানের মোশাররফ তো এদিকে বই টই লিখে, সাক্ষাত্কার দিয়ে তুলকালাম কান্ড করছে। ঠিক কি মতলব আছে লোকটার বোঝা কঠিন। এই নিয়ে যুক্তরাষ্টেª হাস্যরস কম হচ্ছে না।

জাতিসংঘের স‡¤§লনের সাথে তাল মিলিয়ে কাজাখস্থান নিয়ে চরম তামাশা করছে একটি মুভি বোরাট (নভেম্বরে বের হওয়ার কথা)। এই সাইটে অনেক তথ্য আছে বোরাট নিয়ে - http://www.boratonline.co.uk। হাসতে হাসতে পেট ফাটার মতো অবস্থা বোরাটের কাজকর্ম দেখে। হাতে সময় থাকে ভিডিওগুলো দেখুন। বোরাটের কাজকর্মে কাজাখস্থানের এমন দুর্নাম হচ্ছে যে ঐ দেশের সরকার এখন পয়সা খরচ করে যুক্তরাষ্টেªর পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে দেশের মান ইজ্জত রক্ষার চেষ্টা করছে। এই বৃটিশ কমেডিয়ান এর আগে আরো দু-একটি দেশকে পঁচিয়ে এরকম ফিল¥ তৈরী করেছে। কে জানে কবে আবার বাংলাদেশকে ধরে, দেশের ভাবমুর্তির এমনিতেই যে দশা, বোরাটের পাল্লায় পড়লে মান সন্মান নিয়ে চলা ফেরা করতে কষ্ট হবে।

উটের পায়ের আঙ্গুল তবে সপ্তাহের সবচেয়ে মজার আবিষ্কার বোধহয় Beach Boys এর ৮০র দশকের গান Kokomo ইউ টিউব প্যারোডি http://www.youtube.com/watch?v=hew6WPys8iQ। ষ্কুলে থাকতে গানটা খুব প্রিয় ছিল, কারা যেন ক্যামেল টো বানিয়ে ছেড়েছে এটাকে। আসলে এখানকার বাঙালী মেয়ে মহলে একজনের কাছে ঘটনাটা শুনলাম, ওদের অনেকে গ্র্যাড ষ্কুলে যায়, তো এরকম একজনের ক¬াসে শিক্ষিকা এসেছেন এমন আটোসাটো প্যান্ট পড়ে যে তার ক্যামেল টো পরিষ্কার দেখা যাচ্ছিল। হাসির ঘটনাটা শুনে বাসায় এসে ভাবলাম ক্যামেল টো ব্যপারটা নিয়ে একটু ঘেটে দেখি, সেখান থেকেই ইউ টিউবের প্যারোডি আবিষ্কার করলাম। দেশের মেয়েরা অবশ্য সালোয়ার কামিজ পড়ে তাই ক্যামেল টো দেখা সহজ না। বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকতে আমাদের ক¬াসের দুএকজন নিতম্বীনি বসা থেকে উঠে দাড়ালে নিতম্বের খাজে কাপড় ঢুকে থাকতো, এই নিয়ে তখন অনেক হাসাহাসি করেছি। ভাবছি সামনে ক্ষেত্রে যদি ক্যামেল টো হয় পেছনের জন্য কি হবে, এ্যালিফ্যান্ট টো মনে হয় না ... ভাবতে হবে

0 Comments:

Post a Comment

Links to this post:

Create a Link

<< Home

eXTReMe Tracker