Thursday, September 14, 2006

নিয়ান্ডারটাল রহস্য


আচ্ছা যদি আমি জানতে চাই গরু এবং ভেড়ার মিলন ঘটালে কি কোন প্রানীর জন্ম হবে, যদি না হয় তার কারন কি? এরকম অনেক উপলব্ধি আমাদের মধ্যে স্বতঃসিদ্ধের মতো আছে যে, দুটি সম্পুর্ন ভিন্ন প্রানীর মিলনে সন্তান তৈরী হয় না । অন্যদিকে পৃথিবীর যে কোন অঞ্চলের মানুষ, অন্য যে কোন অঞ্চলের মানুষের সাথে মিলিত হয়ে সন্তান জন্ম দিতে পারে, তা চেহারা-গঠনে আমাদের যত পার্থক্যই থাকুক না কেন। এর কারন সমস্ত মানুষ এখনও এক প্রজাতির অংশ, আর আমাদের প্রজাতির ( Homo sapiens sapiens) বয়সও খুব কম, আমি আগের একটি লেখায় উল্লেখ করেছিলাম জেনেটিক্স থেকে প্রমান করা যায় আমাদের প্রজাতির বয়স দেড় লাখ বছরের মতো। তবে পৃথিবী সবসময়ই এমন ছিল না, মানুষের যে মাত্র একটি প্রজাতি সবসময় ছিল তা-ও না, আসলে কয়েক হাজার বছর আগেও মানুষের অন্য প্রজাতি বেচে ছিল (যেমন এবু গোগো)। মানুষের অন্য প্রজাতি মানে দাড়াচ্ছে তাদের সাথে আমাদের মিলন ঘটিয়ে সন্তান জন্ম দেয়া কঠিন বা অসম্ভব, কারন তাদের সাথে আমাদের জেনেটিক পার্থক্য যথেষ্ট বেশী। এই অন্য মানুষদের মধ্যে সবচেয়ে বিখ্যাত মনে হয় নিয়ান্ডারটাল মানুষ (জার্মান উচ্চারন ঠিক কেমন হবে আমি নিশ্চিত নই, বানান এরকম - Neanderthal or Neandertal)।

উনবিংশ শতাব্দির মধ্যভাগে জার্মানীর নিয়ান্ডার ভ্যালীতে প্রথম এ ধরনের মানুষের ফসিল আবিষ্কৃত হয়। যেহেতু নিয়ান্ডারটালদের বেশীরভাগ ফসিল ইউরোপে পাওয়া গেছে একসময় মনে করা হতো এরা হয়তো আধুনিক ইউরোপীয়ানদের পুর্বপুরুষ। ভালোমতো পরীক্ষা করলে অবশ্য বোঝা যায় নিয়ান্ডারটাল হাড়গোড়ের (কঙ্কালের) সাথে আধুনিক মানুষের কঙ্কালের গুরুত্বপুন পার্থক্য আছে। নিয়ান্ডারটালরা খর্বাকৃতির (পুরুষ গড়-৫'৫'' মেয়ে গড়-৫'২"), Barrel-shaped rib cage, পেশীবহুল গঠনের মানুষ (ছবি দ্রঃ)। নিয়ান্ডারটাল শারিরীক গঠন তখনকার বরফযুগের ইউরোপের আবহাওয়ার জন্য খুবই উপযোগী ছিল। ‡¯úন থেকে শুরু করে পুরো ইউরোপ, মধ্য এশিয়া এবং মধ্য প্রাচ্যে এদের ফসিল পাওয়া গেছে। পাচ-ছয় লাখ বছর আগে থেকে শুরু করে মাত্র ৩০ হাজার বছর আগেও নিয়ান্ডারটালরা পৃথিবীতে ছিল।

বেশীরফাগ ফসিলই পাওয়া গেছে বিভিন্ন গুহায়, এসব ফসিলের সাথে তখনকার আরো অনেক প্রানীর ফসিলও (যেমন বল্গা হরিন, ম্যামথ, আর্কটিক শেয়াল, বাইসন) পাওয়া গেছে। গুহার পরিস্থিতি দেখে মনে হয় ওরা সম্ভবত মৃতকে কবর দিত, আবার অনেক সময় আহত/অসুস্থদেরকে বহুদিন সেবা যত্ন করত (কিভাবে বোঝা গেল? - অনেক নিয়ান্ডারটাল হাড়ে দেখা যাচ্ছে মারাত¥ক ইনজুরীর পর সেটা আস্তে আস্তে ভালো হয়ে গিয়েছে, এত বড় আঘাতের পর বেচে থাকা তখনই সম্ভব যখন দলের অন্যরা সাহায্য করবে ইত্যাদি)। ক›ঠনালীর গড়ন থেকে মনে হয় নিয়ান্ডারটালরা মানুষের মতোই শব্দ করতে পারত, খুব সম্ভব ভাষাও (প্রিমিটিভ হতে পারে) ছিল তাদের। তবে বেশীরভাগ নিয়ান্ডারটালের কঙ্কালে এত ইনজুরীর ছাপ যে মনে হয় ওদের জীবনযাত্রা বেশ ভয়ঙ্কর ছিল। এর আরো প্রমান খাদ্যাভ্যাস বিশ্লেষন করলে, কার্বন-১৩, এবং নাইট্রোজেন-১৫ আইসোটোপের ওপর ভিত্তি করে ফসিল হাড় থেকে প্রানীটি কি খেয়ে থাকত তা মোটামুটি বোঝা যায়। নিয়ান্ডারটালরা পুরোপুরি মাংশাসী প্রানী ছিল, এবং তাদের টার্গেট ছিল বড় বড় জীবজন্তু যেমন ম্যামথ ( বরফযুগের অতিকায় হাতি, এখন বিলুপ্ত), বাইসন, বল্গা হরিন ইত্যাদি। আর প্রানী শিকারের হাতিয়ার ছিল মুলত বর্শা, পাথরের তৈরী কুড়াল। ওরা তীর ধনুক বা এধরনের দুর থেকে ছোড়া যায় এমন হাতিয়ার আবিষ্কার করতে পারে নি। একারনে স্বাভাবিক ভাবেই শিকারের খুব কাছে থেকে আক্রমন করতে হতো, যেটা হয়তো ইনজুরীর একটা বড় কারন।

নিয়ান্ডারটালরা কেন বিলুপ্ত হয়েছে, তার কারন এখনও অনেকটা বিতর্কিত। তবে তাদের তিরোধানের সাথে ইউরোপে আধুনিক মানুষের পদার্পনের একটা সম্পর্ক আছে বলেই মনে হয়। আধুনিক মানুষ ৫০-৬০ হাজার বছর আগে (আরো আছে এই
লেখায় আফ্রিকা থেকে মধ্য প্রাচ্য হয়ে ইউরোপে ছড়িয়ে পড়তে থাকে। ইউরোপে আধুনিক মানুষের এই ধারাকে বলা হয় ক্রোম্যানিয়ন (Cro-Magnon), তো এদের সাথে নিয়ান্ডারটালদের কয়েকটা গুরুত্বপুর্ন পার্থক্য ছিল - ক্রোম্যানিয়নরা উন্নত মানের হাতিয়ার তৈরী করতে পারত এবং শিকার করা প্রানীর হাড়গোড় থেকেই হাতিয়ার বানাতো (নিয়ান্ডারটাল মুলত পাথর আর কাঠের ওপর নির্ভরশীল ছিল), ক্রোম্যানিয়নরা সামাজিক ভাবে অনেক সংগঠিত ছিল। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ন বোধ হয় ক্রোম্যানিয়নদের মধ্যে শিল্পকলার উপস্থিতি। কিন্তু শিল্পকলা কেন? কারন শিল্পের সাথে সৃজনশীলতা জড়িত, ক্রোম্যানিয়ন ক্রমাগত তাদের হাতিয়ারের উন্নতি করেছে, অন্যদিকে নিয়ান্ডারটাল লাখো বছরেও একই হাতিয়ার ব্যবহার করে চলছিল। সম্ভবত এই কারনে নিয়ান্ডারটালরা ক্রোম্যানিয়ন দের সাথে পেরে ওঠেনি। তবে বিলুপ্ত হওয়ার আগে ১০-২০ হাজার বছর ক্রোম্যানিয়ন এবং নিয়ান্ডারটালরা পাশাপাশি থেকেছে। শেষের দিকে নিয়ান্ডারটালরা অনেক কিছু ক্রোম্যানিয়ন দের কাছ থেকে নকল করা শুরু করেছিল, তবে ততদিনে অনেক দেরী হয়ে গিয়েছে।

আগামী পর্বে সমাপ্য - জেনেটিক্স ও নিয়ান্ডারটাল

0 Comments:

Post a Comment

Links to this post:

Create a Link

<< Home

eXTReMe Tracker